বঙ্গোপসাগরে ধেয়ে আসছে ‘অশনি’ : ভারী বৃষ্টিতে ভাসবে কক্সবাজার উপকূল

বঙ্গোপসাগরে ধেয়ে আসছে ‘অশনি’ (Cyclone Asani)।

কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৩৪০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছে।

এটি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

এ অবস্থায় কক্সবাজার উপকূলে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব কতটা? এটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন।

আবাহাওয়া অফিস ইতিমধ্যে উপকূলীয় জেলেদের জন্য ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্কতা জারি করেছে।

শনিবার আবহওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মো, শাহীনুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা দেয়া হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে,দক্ষিণ আন্দামান এবং দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগরের পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে।

আবাহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আগামী ৬ ঘণ্টার মধ্যে এই নিম্নচাপ আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে গভীর নিম্নচাপ তৈরি করতে পারে।

রবিবার শক্তিশালী নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে (Cyclone Alert) পরিণত হতে পারে।

আবাহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী, এই ঝড়ের অভিমুখ অন্ধ্রপ্রদেশ এবং ওড়িশার দিকে। তবে ১০ মে পর এই ঘূর্ণিঝড়ের মুখ ওড়িশার দিকে ঘুরে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। যার প্রভাব পড়তে পারে কক্সবাজার উপকূলেও।

এদিকে নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার যা দমকা অথবা ঝড়ো-হাওয়ার আকারে ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের কাছে সাগর মাঝারি ধরণের উত্তাল রয়েছে। এজন্য কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। তাদেরকে গভীর সাগরে বিচরণ না করার জন্যও বলা হলো।