৭দিনের মধ্যে কার্যভার হস্তান্তরের নির্দেশ

পালংখালী ওয়াকফ এস্টেটের মাতোয়াল্লী অপসারণ

আবদুল্লাহ আল আজিজ, কক্সবাজার জার্নাল

বাংলাদেশ ওয়াক্ফ প্রশাসকের কার্যালয়োয়ের কৃত মামলার দীর্ঘ শুনানীতে প্রতিপক্ষ মাতোয়াল্লী সোহেল মোস্তফা চৌধুরী আনিত অভিযোগের কোন প্রকার সত্যতা প্রমাণিত না হওয়ায় ওয়াক্ফ প্রশাসক তাকে আব্দুল লতিফ চৌধুরী ওয়াক্ফ এষ্টেট থেকে অপসারণ করেছে এবং আগামী ৭দিনের মধ্যে লতিফ আনোয়ার চৌধুরীকে ওয়াকফ এষ্টেটের যাবতীয় স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তিসহ এষ্টেটের মালিকানা হস্তান্তরের নির্দেশ দিয়েছে।

বাংলাশে ওয়াকফ প্রশাসকের অতিরিক্ত সচিব মোঃ শহিুল ইসলাম ও যুগ্ম সচিব ওেয়ান মোহাম্ম আব্দুস সামাস্বাক্ষরিত ওয়াক্ফ অধ্যাশে ১৯৬২ এর ৩২ ধারা মোতাবেক মাতোয়াল্লী অপসারণ প্রসঙ্গে শুনানীর বিবরণে জানা যায়, ১ লা জুলাই ২০১৮ ইং তারিখে জুহুরুল আনোয়ার চৌধুরীসহ ৫ জন ওয়াক্ফ অধ্যােেশর ৩২ ধারা মোতাবেক মাতোয়াল্লী সোহেল মোস্তফা চৌধুরীকে অপসারণ করার জন্য আবেন আনায়ন করেন।

উক্ত আবেনের প্রেক্ষিতে ওয়াকফ প্রশাসক গত ০২/০৮/২০১৮ইং তারিখে প্রতিপক্ষ মাতোয়াল্লীকে কারণর্শানো নোটিশ জারি করেন। ওয়াকফ প্রশাসক কারণ র্শানোর বিষয়ে বিভিন্ন সময়ে সময় প্রান করার পরও মাতোয়াল্লী পর পর ৫টি ধার্য্য তারিখে হাজির না হয়ে সময়ের প্রার্থনা করে কালক্ষেপন করতে থাকে।

অপর দিকে আবেনকারীরা নিয়মিত হাজিরা দিয়ে চলছে। গত ১২/০৩/২০১৯ইং তারিখে প্রতিপক্ষ মাতোয়াল্লী সোহেল মোস্তফা চৌধুরী আবেন করে মাতোয়াল্লী প্রতিপক্ষ শুনানীতে গড় হাজির রয়েছে মর্মে ন্যায্য বিচারের স্বার্থে আবারো সময়ের আবেন করলে ওয়াকফ প্রশাসক আবেন না মঞ্জুর করে নথি পর্যালোচনা করে আশোনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

আশে নামায় উল্লেখ করা হয়েছে সোহেল মোস্তফা চৌধুরী কারণ দর্শানোর নোটিশের জবাব না দিয়ে ওয়াকফ অধ্যাশে ১৯৬২ সনের ২৭ ধারা লংঘন করেছেন এবং ওয়াকফ প্রশাসকের কর্তৃত্বকে অবমাননা করেছেন।

দ্বিতীয়ত সোহেল মোস্তফা চৌধুরী পর পর ৩টি ধার্য্য তারিখে গড় হাজির থেকে ওয়াকফ প্রশাসনকে অবমাননা করেছেন। ওয়াকফ প্রশাসকের সার্বিক বিবেচনায় মাতোয়াল্লী সোহেল মোস্তফা চৌধুরীকে এস্টেটের দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনে অবহেলা করায় দোষী সাব্যস্ত করে তাকে মাতোয়াল্লী থেকে অপসারণ করেন এবং ২৩/০৫/২০১৮ইং তারিখে মূলে গঠিত উপদেষ্টা কমিটি ও কার্যকরী কমিটিকে এস্টেটের সমুদয় দায়িত্বভার অপসারিত মাতোয়াল্লীর নিকট থেকে গ্রহণ করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়। বিধান মোতাবেক পরবর্তী মাতোয়াল্লী নিয়োগ না হওয়া পর্যন্ত ওয়াকফ এস্টেটের সংরক্ষণ, নিয়ন্ত্রণ, পরিচালনা সহ এস্টেটের আয় ব্যায়ের হিসাব নিয়ন্ত্রণের রাখার জন্য লতিফ আনোয়ার চৌধুরী গঠিত ৫ সস্যের কমিটিকে নির্দেশ দেওয়া হয়।